বাংলাদেশ টেস্ট ও টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক সাকিব আল হাসানের বিরুদ্ধে আইসিসির তদন্তে তাদের কোনও ভূমিকা ছিল না বলে দাবি করেছে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড (বিসিসিআই)। তবে বিবিসির কাছে বিসিসিআই এ কথাও জানিয়েছে, আইসিসিকে তারা এই তদন্ত চালানোর ‘সম্মতি’ দিয়েছিলেন।

ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের দুর্নীতি দমন ইউনিটের (এসিইউ) প্রধান অজিত সিং শেখাওয়াত বিবিসি বাংলাকে দেওয়া এক একান্ত সাক্ষাৎকারে এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, “এখানে (সাকিব আল হাসানের বিরুদ্ধে তদন্তে) আমরা কিছুই করিনি। বস্তুত আইসিসি-ই একটি ব্যাপার নিয়ে তদন্ত করছিল, যাতে কিছু আন্তর্জাতিক ইস্যু জড়িত ছিল – আর সেখানে আইপিএলের নামও এসেছিল।
“সুতরাং (আইপিএলের আয়োজক সংস্থা হিসেবে) বিসিসিআই এই তদন্ত এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার ক্ষেত্রে আইসিসিকে সায় দিয়েছিল, এটুকুই শুধু বলতে পারি।”

সাকিব আল হাসানের বিরুদ্ধে আইসিসির দীর্ঘ রায়ে আইপিএলের যে ম্যাচটির প্রসঙ্গ উল্লেখ করা হয়েছে, সেটি খেলা হয়েছিল ২০১৮ সালের ২৬ এপ্রিল।

ওই ম্যাচটিতে সাকিবের টিম সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদ কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের বিরুদ্ধে ১৩ রানে জেতে।

ভারতীয় বোর্ড সূত্রে আরও বলা হচ্ছে, সেই আইপিএল মৌশুমে দুর্নীতি-দমন সংক্রান্ত যাবতীয় বিষয় তদারকির দায়িত্বে ছিল আইসিসি নিজেই, সুতরাং সেখানে বিসিসিআইয়ের প্রত্যক্ষ কোনও ভূমিকা থাকার কথাও নয়।

ওই আইপিএল মৌসুম চলাকালীনই অজিত সিং শেখাওয়াত ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডে দুর্নীতি দমন ইউনিটের দায়িত্ব নেন।

তবে তার কথা থেকে এটা স্পষ্ট, নির্দিষ্ট অভিযোগে সাকিব আল হাসানের বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু করার পরই আইসিসি বিষয়টি ভারতীয় বোর্ডকে জানিয়েছিল এবং আইপিএলের একটি ম্যাচকে কেন্দ্র করে সাকিবের বিরুদ্ধে যে তদন্ত চলছে – বিসিসিআই সে বিষয়ে অবহিত ছিল।

সূত্র: বিডি -প্রতিদিন

Content Protection by DMCA.com